18 May 2024

মঙ্গলবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

আইনজীবীদের পেশাগত মান উন্নয়নের জন্য দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে

Share

ফটোনিউজবিডি ডেস্ক:

জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান বলেছেন, বিচারাঙ্গনের উন্নয়ন ও আইনজীবীদের পেশাগত মান উন্নয়নের জন্য দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে। আইনাঙ্গণ বিচার প্রার্থীদের কাছে একটি জাগতিক আশ্রয়স্থল। যেখানে ন্যায়বিচার পাওয়ার আশায় ভুক্তভোগীরা দ্বারস্থ হয়।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত আইনজীবী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল সদ্য কারামুক্ত মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান।

কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রীয় মজলিসের শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নায়েবে আমির অ্যাডভোকেট ড. হেলাল উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান বলেন, বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে আজ বাংলাদেশের জনগণ এক অস্বস্তিকর পরিবেশে জীবনযাপন করছে। এই ভয়ানক পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে আইনজীবীদের এগিয়ে আসতে হবে। আজকে উপস্থিত তরুণ আইনজীবীগণ আমাদের আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতীক। দেশে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার স্বার্থে তাদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।

তিনি বলেন, জামায়াতে ইসলামী মানবতার মুক্তি ও কল্যাণকামী সংগঠন। এদেশে ইসলামের সু-মহান আদর্শের আলোকে একটি কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত না হওয়া পর্যন্ত আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে। এজন্য জামায়াতে ইসলামীর শপথের জনশক্তি হিসেবে উপস্থিত আইনজীবীদের কৃত ওয়াদার আলোকে নিজ নিজ অঙ্গনে ঐক্যবদ্ধ ও বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে। সামনে এশিয়ার সর্ববৃহৎ বার ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন। এই নির্বাচনে ঢাকা আইনজীবী সমিতিকে একটি আধুনিক ও উন্নত সুযোগ সুবিধা সম্বলিত আইনজীবী সমিতি হিসেবে গড়ে তোলার জন্য ইসলামী মূল্যবোধ ও জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী নীল প্যানেলকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধভাবে ভূমিকা পালন করতে হবে।

সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও প্রচার সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দ।

তিনি বলেন, আইনজীবীগণ স্বাধীনতা সংগ্রাম, স্বৈরাচার বিরোধী সংগ্রামসহ জাতীয় সকল সংকটে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করেছেন। ন্যায়বিচার নিশ্চিত করে বিচারপ্রার্থীদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠা, আইনাঙ্গনে গতিশীলতা এবং আইনজীবীদের অধিকার সমুন্নত রাখতে তিনি জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত প্রার্থীদের সহ পূর্ণ প্যানেলে নীল প্যানেলকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করার আহ্বান জানান।

কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের আমির সদ্য মু. সেলিম উদ্দিন বলেন, আজ গোটা বিচারাঙ্গনের অবস্থা অত্যন্ত নাজুক। স্বাধীন বিচার ব্যবস্থার কথা বলা হলেও বাস্তব চিত্র তার পুরো উল্টো। অতীতে দেশের যেকোনো দুর্যোগ ও ক্রান্তিকালে আইনজীবীরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। বর্তমান সময়েও ইসলামের সু-মহান আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য আইনজীবীদের বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে।

বাংলাদেশ ল’ইয়ার্স কাউন্সিলের সভাপতি অ্যাডভোকেট জসীম উদ্দিন সরকার বলেন, ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্যানেলকে পরিপূর্ণভাবে নির্বাচিত করার জন্য সকল আইনজীবী ভোটারদের এগিয়ে আসতে হবে। যাতে করে এই প্যানেল বিজয়ী হওয়ার পর সততা ও নিষ্ঠার সাথে আইনজীবীদের অধিকার মান-মর্যাদা সমুন্নত রাখতে প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে পারে।

সভাপতির বক্তব্যে নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, বাংলাদেশে আজ আইনের শাসন বলতে কিছু নেই। দেশের বিচার ব্যবস্থার সার্বিক উন্নয়নে আইনজীবীদের নিজ নিজ ক্ষেত্রে আরও দক্ষতা প্রদর্শন করতে হবে। বিচার ব্যবস্থার প্রতি সাধারণ মানুষের পূর্ণ আস্থা ফিরিয়ে আনতে অবদান রাখতে হবে।