20 April 2024

মঙ্গলবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

কাল্পনিক ঘটনা অবলম্বনে নির্বাচনী গল্প

Share

বি: দ্র: এই লেখাটি সম্পূর্ণ কাল্পনিক ঘটনা অবলম্বনে। কারো সাথে মিলে গেলে লেখক দায়ী নন।

আশরাফ আলী::
জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে জানুয়ারীর প্রথম সপ্তাহে। নির্বাচন নিয়ে দেশে-বিদেশে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। একি সাথে কথার লড়াই চলছে রাজনীতিবীদ থেকে শুরু করে প্রত্যান্ত গ্রামের চা-ষ্টল পর্যন্ত। সবার মুখে একই কথা কি হচ্ছে? আদৌ নির্বাচন হচ্ছে কি-না? নির্বাচন হয়ে গেলে কি হবে? বিদেশী চাপ দেশের সরকার কিভাবে মোকাবেলা করবে? নির্বাচনে সাধারণ মানুষ ভোট দিতে যাবে কি-না?
এরই মধ্যে দেশের রাজধানী ঢাকার সোনারগাঁ হোটেলে একটি কাল্পনিক গোলটেবিল বৈঠক বসেছে। বৈঠকে আছেন আওয়ামীলীগের কয়েকজন নেতা, বিরোধী দল বিএনপিসহ কয়েকটি দলের নেতা, সুশীল সমাজের প্রতিনধি ও দেশের সাধারণ নাগরিক। এক পর্যায়ে নির্বাচন নিয়ে কথা কথা উঠেছে। নির্বাচন নিয়ে কথা উঠতেই বিরুধী দল বিএনপি’র একজন নেতা বলে উঠলেন বর্তমান সরকার ৭ জানুয়ারি নির্বাচন করলেও বেশি দিন টিকতে পারবে না। ক্ষমতা ছাড়তে হবে। তার কথার প্রতিউত্তরে আওয়ামীলীগের একজন নেতা বলে উঠলেন হ্যাঁ, সরকার বেশি দিন টিকতে পারবে না। যাই করুক ৫ বছরের বেশি সরকার টিকতে পারবে না। ৫ বছর পরে আবার নির্বাচন দিতে হবে। একথা শুনে বিরুধী দলীয় নেতা তাজ্জুব বনে গেলেন।
এর মধ্যে আরেকজন সাধারণ নাগরিক বলে উঠলেন, আমাদের মতো সাধারণ মানুষের সরকারের পরিবর্তনে কোন যায় আসে না। আমাদের দরকার মৌলিক চাহিদা পূরণ। দ্রব্যমূল্যের নিয়ন্ত্রণ। এগুলো ঠিক থাকলে কে ক্ষমতায় আছে আর কে নেই সেগুলো আমাদের দেখার দরকার নেই।
তার মধ্য থেকে আবার সুশীল সমাজের একজন বলে উঠলেন, বর্তমান সরকারের দীর্ঘ শাসনে ভোটাধিকার নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। এজন্য মানুষের ভোট নিয়ে খুব একটা আগ্রহ নেই। এমনকি আমার নিজেরও ভোট নিয়ে কোন আগ্রহ নেই। আমরা চাই দেশ ভালো ভাবে চলুক। দেশের মানুষ শান্তিতে থাকুক। দেশে বিদেশী কোন নিষেধাজ্ঞা না আসুক। দেশের মানুষ ভোটাধিকার ফিরে পাক। নিজের পছন্দ মতো প্রার্থীকে ভোট দিক।

লেখক:: সাংবাদিক