21 May 2024

মঙ্গলবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

জুড়ীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গাছ থেকে পড়ে কিশোরের মৃত্যু

Share

স্টাফ রিপোর্টার:

মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলায় ব্যাডমিন্টন মাঠে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গাছ থেকে পড়ে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (২২ ডিসেম্বর) রাতে এই ঘটনা ঘটে। নিহত রিফাত আহমদ (১৭) উপজেলার ফুলতলা ইউনিয়নের দক্ষিণ সাগরনাল গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। চার ভাই ও তিন বোনের মধ্যে রিফাত পরিবারে সবার ছোট।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাড়ির পাশে পতিত ধানী জমিতে রিফাত ও তার বন্ধুরা গত ২/৩ দিন ধরে ব্যাডমিন্টন খেলার জন্য মাঠ প্রস্তুত করছিল। শুক্রবারে মাঠ প্রস্তুত হয়ে যায়। আনুমানিক রাত সাড়ে ৮টার দিকে ব্যাডমিন্টন মাঠে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার জন্য রিফাত পল্লী বিদ্যুতের ১১ হাজার কেবি ভোল্টের মেইন লাইনে সংযোগ দিতে বিকৃত আকৃতির এক শিমুলগাছে উঠে। সেখানে অন্ধকারের মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিচে পড়ে যায়।

পরে সেখান থেকে রিফাতের সাথে থাকা অন্যান্যরা তাকে উদ্ধার করে সিএনজিচালিত অটোরিকশাযোগে ফুলতলা বাজারের পল্লী চিকিৎসক মোঃ খলিলুর রহমানের কাছে নিয়ে গেলে রিফাতকে সংকটাপন্ন অবস্থায় দেখে খলিলুর রহমান তাকে জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থানান্তর করেন। জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও ইসিজি করে কর্তব্যরত চিকিৎসক শরফ উদ্দিন তফাদার আদিল তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কিশোর বয়সে রিফাতকে হারিয়ে তার পরিবারে চলছে শোকের মাতম। রিফাতের জন্য আহাজারি করে বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন তার মা ও বোনেরা। রিফাতের বড় ৩ ভাই প্রবাসে থাকেন। মৃত্যুর খবর শুনে রিফাতকে দেখতে তার ভাই রুমন আহমদ দেশে আসছেন। এলাকাবাসী ও আত্মীয় স্বজনেরা ভিড় জমিয়েছেন তার বাড়িতে। সবার কান্নায় দক্ষিণ সাগরনালের আকাশ-বাতাস যেন ভারী হয়ে উঠেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফুলতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আলীম শেলু বলেন, “খবর পেয়ে আমি রিফাতের বাড়িতে যাই। এরকম মৃত্যু সত্যিই হৃদয়বিদারক। গতরাতে পুলিশ রিফাতের লাশ বাড়ি থেকে থানায় নিয়ে গেলেও আজ সকালে পরিবারের সদস্যদের আবেদনের প্রেক্ষিতে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেছে।”

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে রিফাতের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম মাইন উদ্দিন বলেন, “এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। পরিবারের লোকজনের আবেদনের প্রেক্ষিতে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।”