Share

ফটোনিউজবিডি ডেস্ক:

রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর দু’টি বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণে কয়েক জন নিহত হয়েছেন। ইউক্রেন সীমান্ত থেকে কয়েকশ কিলোমিটার দূরে রাশিয়ার পৃথক দুই বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণের এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কয়েক জন।

রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, মস্কোর দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের রিয়াজান শহরের কাছের একটি বিমানঘাঁটিতে জ্বালানি ট্যাংকার বিস্ফোরণে অন্তত তিন জন নিহত ও আরও ছয় জন আহত হয়েছেন।

এছাড়া সারাতোভ অঞ্চলের একটি বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণে আরও দু’জন আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

তবে পৃথক এই বিস্ফোরণের কারণ এখনও জানা যায়নি। আর এই দুই বিস্ফোরণস্থলের অবস্থান ইউক্রেনের সীমান্ত এলাকা থেকে কয়েকশ কিলোমিটার দূরে।

সারাতোভ অঞ্চলের এঙ্গেলস বিমানঘাঁটিতে রাশিয়ার কৌশলগত দূরপাল্লার সব বোমারু বিমান নোঙ্গর করা আছে বলে মনে করা হয়।

সারাতোভের আঞ্চলিক গভর্নর বলেছেন, নিরাপত্তা বাহিনী এই ঘটনা তদন্ত করে দেখছে। তবে সরাসরি বিস্ফোরণের কথা না বললেও সেখানকার ‘সামরিক স্থাপনায় একটি ঘটনা’ ঘটেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বিবিসির রুশ সম্পাদক স্টিভেন রোসেনবার্গ বলেছেন, রাশিয়ার পৃথক দু’টি সামরিক স্থাপনায় বিস্ফোরণের পেছনে ইউক্রেনের জড়িত থাকার জল্পনায় ইন্ধন জোগাবে এই খবর।

গত সপ্তাহে স্যাটেলাইট থেকে সংগৃহীত ছবিতে এঙ্গেলস বিমানঘাঁটিতে সামরিক বিমানের তৎপরতা দেখা যায়। এঙ্গেলসের স্যাটেলাইট ছবি প্রকাশের পর বিস্ফোরণের এই ঘটনা ঘটেছে।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে পৃথক বিস্ফোরণের ঘটনার বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে।

ভিন্ন ভিন্ন বিস্ফোরণের ব্যাপারে মন্তব্য জানতে চাইলে সোমবার পেসকভ বলেন, এই ঘটনার বিষয়ে তার কাছে এখন পর্যন্ত তথ্য নেই। তবে তিনি বিস্ফোরণের ব্যাপারে গণমাধ্যমে খবর দেখেছেন বলে জানিয়েছেন।

সূত্র: বিবিসি।