Share

ফটোনিউজবিডি ডেস্ক:

১২০ পয়েন্ট নিয়ে আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগে তালিকার পঞ্চম স্থানে আছে বাংলাদেশ। ১৮ ম্যাচে ১২ জয়ে বাংলাদেশ সুপার লিগে শুধু ভালো অবস্থানেই নেই, ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ সরাসরি অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে ফেলেছে।

গতকাল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আফগানিস্তানের সহজ জয়ে বাংলাদেশের বিশ্বকাপে সরাসরি অংশগ্রহণ নিশ্চিত হয়ে গেছে। বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত হয়েছে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, নিউ জিল্যান্ড ও পাকিস্তানের। ভারত আয়োজক হিসেবে সরাসরিই খেলবে বিশ্বকাপ।

ওয়ানডে ক্রিকেটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়াতে ও সবগুলো দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে আইসিসি চালু করেছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগ। ভারতে হতে যাওয়া ২০২৩ বিশ্বকাপে ১০ দল অংশ নেবে। আয়োজক দেশ হিসেবে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলবে ভারত। সাত দল বেছে নেওয়া হবে সুপার লিগ থেকে। সুপার লিগের পয়েন্ট টেবিলের প্রথম সাত দল সরাসরি বিশ্বকাপের ছাড়পত্র পাবে। সেই সাত দলের মধ্যে ভারত থাকলে আট নম্বর দল বিশ্বকাপের টিকিট পাবে। বাকি দুই জায়গার জন্য সুপার লিগের শেষে থাকা দলগুলো কোয়ালিফায়ার টুর্নামেন্টে মুখোমুখি হবে সহযোগী দেশগুলোর।

হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে বাংলাদেশ সুপার লিগে খেলবে মোট আটটি সিরিজ। এরই মধ্যে বাংলাদেশ ছয়টি সিরিজ খেলেছে। ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩-০, শ্রীলঙ্কাকে ২-১, আফগানিস্তানকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে। দেশের বাইরে জিম্বাবুয়েকে ৩-০ এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয় পেয়েছে ২-১ ব্যবধানে।

সামনে বাংলাদেশের দুটি সিরিজ রয়েছে। ঘরের মাঠে আগামী বছর ইংল্যান্ডকে আতিথেয়তা দেবে এবং ১৫ মে’র আগে আয়ারল্যান্ডে গিয়ে খেলবে তিনটি ওয়ানডে। দুই সিরিজে কোনো ম্যাচ না জিতলেও বাংলাদেশ সরাসরি আটে থাকা নিশ্চিত। এজন‌্য পেয়ে গেছে বিশ্বকাপের টিকিট।

কিন্তু বাংলাদেশের লক্ষ্যটা আরও বড়, আরও উঁচুতে, তা আফগানিস্তান সিরিজ শেষে বলেছিলেন অধিনায়ক তামিম, ‘যদি একটা-দুইটা ম্যাচও জিতি আর, তাহলে হয়তো আমরা বিশ্বকাপের জন্য কোয়ালিফাই করব। কিন্তু এটা আমার লক্ষ্য না। আমার ব্যক্তিগত লক্ষ্য হলো বাংলাদেশ সেরা চারে থেকে শেষ করবে। আপনি যদি ৭ বা ৮ নম্বর হয়ে বিশ্বকাপের জন্য কোয়ালিফাই করেন তাহলে সেটা কোনো পার্থক্য তৈরি করে না। যদি আমরা সেরা চারে থেকে যেতে পারি সেটাই একটা ব্যাপার হবে। অধিনায়ক হিসেবে চারে থেকে শেষ করাই আমার লক্ষ্য। কয় ম্যাচ জিততে পারি, কত পয়েন্ট এসব আমার কাছে বিষয় না, আমার কথা হলো শীর্ষ চারে থাকা।’

তামিমের হাত ধরেই বাংলাদেশ সুপার লিগের লড়াই শুরু করেছিল। কিন্তু তার অধিনায়কত্ব নিয়ে শুরু থেকেই উঠেছিল নানা প্রশ্ন। সফলতম অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশকে যেখানে রেখে গেছেন, সেখান থেকে তামিম এগিয়ে নিতে পারবেন কি না সেসব নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছিল। তামিম নিজের কারিশমায় মাঠেই নিন্দুকের জবাব দিয়েছেন।

পঞ্চাশ ওভারের ক্রিকেটে ধারাবাহিক সাফল্যে বাংলাদেশ অন্যতম পরাশক্তি হয়ে উঠেছে। ২০২৩ বিশ্বকাপ হতে পারে নিজেদের মেলে ধরার সেরা মঞ্চ। সেই চ্যালেঞ্জ নিয়ে এগিয়ে যাওয়া লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা ওয়ানডে সুপার লিগে হয়ে উঠেছে অপ্রতিরোধ্য, নির্ভীক। কাট আউটে টাইমের পর বাংলাদেশ চারে থেকে নিজেদের চ‌্যালেঞ্জে জিততে পারলে মানসিকভাবে বিশ্বকাপে আরও চাঙ্গা থাকতে পারবে।