24 February 2024

মঙ্গলবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

সামনে কঠিন অর্থনৈতিক পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে: ঋষি সুনাক

Share

ফটোনিউজবিডি ডেস্ক:

তার সরকারের জন্য সামনে কঠিন অর্থনৈতিক পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে বলে সতর্কতা উচ্চারণের পর ইউক্রেনকে রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। মঙ্গলবার ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ১০ নং ডাউনিং স্ট্রিটে দেওয়া প্রথম ভাষণে এই প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

এ সময় ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনকে ‘ভয়ঙ্কর যুদ্ধ’ বলে অভিহিত করেন কনজারভেটিভ দলীয় এই প্রধানমন্ত্রী। একই সঙ্গে সফলভাবে এই যুদ্ধের শেষ দেখতে হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পরপরই এক টুইট বার্তায় ঋষি সুনাককে অভিনন্দন জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি বলেছেন, ‘গুরুত্বপূর্ণ সামরিক মিত্র লন্ডনের সাথে সম্পর্ক জোরদার করতে প্রস্তুত আছে কিয়েভ।’

টুইটে জেলেনস্কি বলেছেন, ‘ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ায় ঋষি সুনাককে অভিনন্দন।’ বর্তমানে ব্রিটিশ সমাজ এবং সমগ্র বিশ্ব যে সব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছে তা সুনাক সফলভাবে জয় করতে সক্ষম হবেন বলেও আশাপ্রকাশ করেছেন তিনি।

ইউক্রেনের এই নেতা বলেছেন, ‘আমি ঐক্যবদ্ধভাবে ইউক্রেনীয়-ব্রিটিশ কৌশলগত অংশীদারত্ব জোরদার করতে প্রস্তুত রয়েছি।’

এর আগে, মঙ্গলবার লন্ডনে রাজ পরিবারের কার্যালয় বাকিংহাম প্যালেসে রাজা তৃতীয় চার্লসের সঙ্গে দেখা করেন ঋষি সুনাক। সংক্ষিপ্ত বৈঠকের পর রাজা চার্লস তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেন এবং নতুন মন্ত্রিসভা গঠনেরও আমন্ত্রণ জানান।

যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর সাবেক সরকারের সমালোচনা করে ঋষি সুনাক বলেছেন, বিগত সরকার কিছু ভুল করেছিল এবং সেসব ভুলের জেরেই দেশ বর্তমানে এক গভীর অর্থনৈতিক সংকটের সামনে উপস্থিত হয়েছে। ভাষণের শুরুতেই সাবেক প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসের প্রতি সম্মান জানান তিনি। তারপর বলেন, ‘আমি কী কারণে এবং কোন পরিস্থিতিতে আপনাদের নতুন প্রধানমন্ত্রী হয়েছি, তা আপনারা সবাই জানেন।’

‘এই মুহূর্তে আমাদের দেশ এক গভীর অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া এখনও করোনা মহামারির জের আমাদের টেনে নিতে হচ্ছে।’

সাবেক প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসের নেতৃত্বাধীন সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আমরা কিছু ভুল করেছিলাম। এসব ভুল যে ইচ্ছাকৃত ছিল— এমন নয় এবং কাজ করতে গেলে ভুল হওয়া অস্বাভাবিকও নয়। কিন্তু তারপরও আমরা বলব, কিছু ভুল আমাদের ছিল।’

বিগত সরকারগুলোর ভুল শোধরাতে দ্রুত কাজ শুরু করা প্রয়োজন উল্লেখ করে সুনাক বলেন, ‘আমাদের খুব দ্রুত কাজে নেমে পড়তে হবে। কারণ যতই বিলম্ব হবে— সংকটের তীব্রতা আরও বাড়বে। এবং আমি আপনাদের প্রধানমন্ত্রী হয়েছি বিগত আমলের সেসব ভুল সংশোধনের জন্যই।’

নিজের মেয়াদে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সহযোগিতা কামনা করে তিনি বলেন, ‘দেশের এখন যে পরিস্থিতি, তাতে আমাদের নিজেদের মধ্যকার যাবতীয় মতপার্থক্য ভুলে এক হওয়ার সময় এসেছে। কারণ ব্রিটেনের জনগণের কাছে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং আমার দিক থেকে এ বিষয়ে সবসময়ই পূর্ণ আগ্রহ থাকবে।’

সূত্র: এএফপি, বিবিসি।